অনলাইন গেমে আসক্ত শিশু-কিশোররা ! সকল গেম নিষিদ্ধের দাবি

এ.কে আজাদ সানি ।। তরুন ও যুব সমাজের মেধার সুষ্ঠ বিকাশের লক্ষ্যে এবং তাদের পড়াশুনায় মনযোগী করে তোলার ক্ষেত্রে এসব অনলাইন ভিত্তিক গেম প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে। এমনকি সন্তানদের বিপদগামীও করেছে। যার বাস্তব প্রমান রয়েছে সম্প্রতি সময়ের অনলাইন ভিত্তিক ব্লু হোয়েল গেম। বর্তমানে পাবজি, ফ্রি ফায়ার গেমসহ বুস্টার বেট নামে একটি ভয়ঙ্কর জুয়ার গেমের ছোবলে পড়েছে অধিকাংশ যুবসমাজ।









কয়েকজন শিক্ষার্থীও এই গেইম আসক্তির কথা জানিয়েছে। প্রযুক্তির প্রতি বেশি আসক্ত হওয়ার কারণে যাদের নিয়ে এত টেনশন তারা কী ভাবছে? এই নিয়ে এক শিক্ষার্থীর সাফ জবাব, স্কুল বন্ধ। বাসায় বসে কতক্ষণ টিভি দেখবো, বই পড়বো? সারাদিন কী করবো? তাই গেম খেলি, অনলাইনে বন্ধুদের সাথে কথাও বলি।

অনলাইন ভিত্তিক সকল গেম নিষিদ্ধের দাবি উঠেছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে গণহারে স্ট্যাটাস দিয়ে বেশ কয়েকদিন ধরে ছাত্র ও তরুন সমাজকে রক্ষায় জরুরিভাবে এ দাবি বাস্তবায়ন করতে সরকারকে পদক্ষেপ নেয়ার জন্য দাবি করেছেন ফেসবুক ব্যবহারকারীসহ সচেতন অভিভাবকরা।

ফেসবুকে অনুসন্ধান চালিয়ে দেখা গেছে, ফেসবুক ব্যবহারকারীরা গেম বন্ধ করতে আগ্রহের কারণ হিসেবে উল্লেখ করেছেন, তাদের সন্তানরা এখন পড়াশুনা বাদ দিয়ে সর্বদা অনলাইন গেমে আসক্ত হয়ে পড়েছে। করোনার মহামারির কারণে চলমান লকডাউনের এ সময়েও সন্তানরা অভিভাবকদের অবাধ্য হয়ে স্মার্টফোনে ইন্টারনেট ভিত্তিক গেমে ব্যস্ততা দেখাচ্ছে।

অসংখ্য অভিভাবকরা জানিয়েছেন, তাদের সন্তানরা এতোটাই অনলাইন গেমে আসক্ত যে, বাবা-মা ও স্বজনদের সাথে রুঢ় আচারণ করে বসছে।



এক অভিভাবক বলেন, তাদের বাসার সামনের রাস্তা ও বাগানে উঠতি বয়সের তরুন-যুবকরা সারিবদ্ধভাবে বসে অনলাইন ভিত্তিক গেমে মত্ত থাকছে। পড়াশুনাতো দুরের কথা, বাসার টুকিটাকি কাজেও তাদের সহযোগিতা পাওয়া যায় না। কেউ কেউ এতোটাই আসক্ত যে অভিভাবকদের সাথে খারাপ আচরনও করছে।

অনুরুপ তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরে হালসা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি আশরাফুল আলম মিলন চৌধুরী বলেন, করোনার কারণে শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায়, স্কুলগামী শিশু-কিশোররা দিনের বেশিরভাগ সময়ই মোবাইল নিয়ে ব্যস্ত থাকছে তারা। কেউ কেউ কিছুক্ষণ অনলাইন ক্লাসে থাকলেও বেশিরভাগ সময়ই খেলছে মোবাইলফোনে গেম। এই গেম খেলতে গিয়ে তারা অনলাইনে অভিভাবকদের প্রচুর অর্থও নষ্ট করছে।

প্রধান শিক্ষক আব্দুস সালাম বলেন, মোবাইলফোন গুরুত্বপূর্ণ গ্যাজেট। তবে বেশিরভাগ সময় শিক্ষার্থীরা মোবাইলফোন ব্যবহার করছে নেশার মতো। তাদের আচরণগত সমস্যাও দিনদিন প্রকট হচ্ছে। তাই, বাবা-মায়ের উচিত সন্তানদের সময় দেয়া, কাউন্সেলিং করা। তাদের সাথে ভালো-খারাপ নিয়ে খোলামেলা আলোচনা করা।

তারা অনলাইন ভিত্তিক সকল গেম বন্ধের জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। এছাড়া একাধিক ব্যক্তি এই গেমের নেতিবাচক প্রভাবেব কথা তুলে ধরে দ্রুত অনলাইন ভিত্তিক সকল গেম বন্ধ করতে সরকারের প্রতি অনুরোধ করেন।

বিশেষ অনুসন্ধানে জানা গেছে, পাবজি, ফ্রি ফায়ার গেমসহ বর্তমানে বুস্টার বেট নামে একটি ভয়ঙ্কর জুয়ার গেমের ছোবলে পড়েছে অধিকাংশ যুবসমাজ। মোবাইল ফোনে একটি বুস্টার বেট নামে সফটওয়্যার ডাউনলোড করে এই গেম খেলে ধ্বংসের পথে চলে যাচ্ছে অধিকাংশ যুবসমাজ। রাতারাতি কোটিপতি হওয়ার স্বপ্নে বিভোর জুয়ার নেশায় অনেক যুবক ইতোমধ্যে হয়েছেন সর্বশান্ত।

এ বিষয়টি নিয়ে প্রশাসনের অভিযান চালানো দরকার বলে মনে করছেন সচেতন নাগরিকমহল ৷




সর্বশেষ সংবাদ

সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলা লকডাউন

এম.এ.আর.নয়ন ।। চুয়াডাঙ্গা জেলায় বেড়েই চলেছে করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। রবিবার (১৩ই জুন) কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে চুয়াডাঙ্গা জেলা থেকে পাঠানো ১৩২জনের নমুনা...

ব্যক্তি স্বার্থের ঊর্ধ্বে উঠে দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করুন : আইজিপি

ভয়েস অফ কুষ্টিয়া ।। বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ বলেছেন, ব্যক্তিস্বার্থ ও মোহের ঊর্ধ্বে উঠে মানবিক মূল্যবোধকে অগ্রাধিকার দিয়ে জনমানুষের কল্যাণ...

গুলি করে হত্যার ঘটনায় মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর : দুপুরে দাফন

ভয়েস অফ কুষ্টিয়া ।। পরকীয়ার জেরে কুষ্টিয়া শহরে স্ত্রী, সৎ সন্তান ও এক যুবককে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যার ঘটনায় মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা...

চট্টগ্রামে বাড়তি ভাড়া না দেওয়ায় যাত্রীর মাথা ফাটালেন হেলপার

ভয়েস অফ কুষ্টিয়া ।। যাত্রীর গন্তব্য নগরের বাদুরতলা বড় গ্যারেজ এলাকা থেকে বহদ্দারহাট পুলিশ বক্স পর্যন্ত। দূরত্ব আনুমানিক ১ কিলোমিটার। সাধারণ সময়ে ভাড়া ৫ টাকা।...
error: কপি করা যাবে না -ধন্যবাদ