মালিহাদ ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীরের সম্মাননা পদক গ্রহণ




ভয়েস অফ কুষ্টিয়া ।। ১৭ই ফেব্রুয়ারী ২০২১ইং তারিখে ঢাকাস্থ পল্টনে ফারস হোটেলের সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ ফোরাম এর আয়োজনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মশতবার্ষিকী ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে “বাংলাভাষা- বাংলাদেশ ও বঙ্গবন্ধু” শীর্ষক আলোচনা সভা এবং কোভিড-১৯ মোকাবেলায় বিশেষ অবদানের জন্য ইউপি চেয়ারম্যান/সদস্যদের সন্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে কুষ্টিয়া জেলার মিরপুর উপজেলার মলিহাদ ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান মো: আলমগীর হোসেনকে সন্মাননা প্রদান করা হয়েছে। সন্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।











অনুষ্ঠানে মালিহাদ ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মো: আলমগীর হোসেন সহ সারা বাংলাদেশের ১৪২ জন ইউনিয়ন চেয়ারম্যান এবং ইউপি সদস্যের হাতে এই সন্মাননা তুলে দেওয়া হয়।

কুষ্টিয়া মিরপুর উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: আলমগীর হোসেন ১০ই আগস্ট ২০১৬ ইং সালে নৌকা প্রতীকে বিজয়ী হয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। নির্বাচনে জয়ী হওয়ার পর থেকেই সাধারণ মানুষের জীবনমান উন্নয়নের জন্য দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তিনি। তার নির্বাচিত ইউনিয়নে এ পর্যন্ত ১২০০ জনকে সরকারি ভাতা প্রাপ্তির ব্যবস্থা করেছেন তিনি। যার মধ্যে আনুমানিক ২০০জন প্রতিবন্ধী, ২০০জন বিধবা আর ৮০০জন বয়স্ক ভাতার কার্ড প্রাপ্ত হয়েছেন। ছোট-বড়-মাঝারি রাস্তাসহ আনুমানিক ২৯ কিলোমিটার রাস্তা পাকা করন করা, এছাড়াও চলাচলের অনুপযোগী পূর্বের পাকা ভাঙ্গা রাস্তাগুলো সংস্কার করা হয়েছে। করোনাকালো তিনি ছিলেন এলাকার মানুষের পরম বন্ধু ও সম্মুখ সারির যোদ্ধা।




একসময় মাদক ও সন্ত্রাসের অভয়ারণ্য খ্যাত মালিহাদ ইউনিয়ন এখন ৯০ ভাগ মাদক সন্ত্রাস মুক্ত। এছাড়াও এই ইউনিয়নটিকে শতভাগ বাল্যবিবাহ মুক্ত করা হয়েছে। সবই হয়েছে বর্তমান চেয়ারম্যান মো: আলমগীর হোসেনের সময়ও নেতৃত্বে।

পারিবারিক কলহ, সামাজিক বিভিন্ন অস্থিরতা, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ নিরসনে তার রয়েছে বড় ধরনের সফলতা। গ্রাম আদালতের মাধ্যমে সপ্তাহের প্রতি সোমবার সমস্যাগুলো সমাধানকল্পে কাজ করেন গ্রাম আদালতের প্রধান স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান।

এই আলমগীর হোসেনের সাথে কথা হলে তিনি জানান, আসছে আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দল যদি তাকে মনোনয়ন দেন তাহলে তিনি পুনরায় নির্বাচন করতে প্রস্তুত। গত নির্বাচনে দল থেকে মনোনয়ন নিয়ে নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করে তিনি বিজয়ী হয়েছেন। তারপর থেকেই সাধ্যমত চেষ্টা করে গেছেন এলাকার উন্নয়নে। বাজেট বরাদ্দ কম থাকায় অনেক কাজ স্বয়ংসম্পূর্ণ ভাবে সমাধান করা সম্ভব হয়নি। যার কারণে যদি পুনরায় দল থেকে মনোনয়ন নিয়ে নির্বাচিত হন তবে তার অসমাপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত করবেন বলে তিনি জানান।

এলাকার বেশ কিছু স্থানীয় জনগণের সাথে কথা হলে তারা জানান, আসছে আগামী নির্বাচনে পুনরায় তারা বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ আলমগীর হোসেনকে চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চান।

সর্বশেষ সংবাদ

লকডাউনে শ্রমজীবী ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের দুর্দশা চরমে

মোশারফ হোসেন ।। লকডাউনের কারণে কুমারখালী শ্রমজীবী ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের অর্থ সংকটে এখন চরমে। বিশেষ করে রিক্সাওয়ালা, হকার, হাজারো শ্রমজীবী এখন ভবিষ্যত নিয়ে চরম...

কুমারখালীতে কৃষকের রহস্য জনক মৃত্যু

মোশারফ হোসেন ।। কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে নিজ বাড়ি থেকে সাড়ে তিনশ গজ দুরের ফাঁকা আবাদি জমি থেকে নজির উদ্দিন ওরফে নাসিম উদ্দিন (৫৯) নামের এক...

কুষ্টিয়ায় আটক ২শতাধিক রিক্সা ফিরিয়ে দিলো পুলিশ

ভয়েস অফ কুষ্টিয়া ।। কুষ্টিয়া মডেল থানা ও পুলিশ লাইনে জব্দ করে রাখা ২শতাধিক রিক্সা ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ। আনন্দে আত্বহারা চালকেরা। কঠোর লক্ডাউন অমান্য...

মিরপুরে পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে হামলা ও মামলার শিকার যুবক

ভয়েস অফ কুষ্টিয়া ।। কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার পোড়াদহে পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে মারধর, মামলা এবং হুমকির শিকার হয়েছে বিল্লাল হোসেন নামের এক যুবক । ঘটনা...
error: কপি করা যাবে না -ধন্যবাদ