দৌলতপুরে অসহায় বিধবা মহিলার বসতবাড়ী ভাংচুর !

কুষ্টিয়া সংবাদদাতা ।। কু্ষ্টিয়া দৌলতপুর উপজেলার হোগলবাড়ীয়া ইউনিয়নের গাছেরদিয়া গ্রামের অসহায় বিধবা মহিলা মোছাঃ খোদেজা খাতুনের একমাত্র বসতঘর ভেঙে ফেলছে নেহারুল নামে একজন। এই নেহারুল একজন নকল বিড়ি তৈরি করেন। শুধু তাই নয় বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় থাকাকালীন এলাকার প্রবীণ আওয়ামীলীগসহ এলাকার নিরীহ মানুষকে নির্যাতনসহ বিভিন্ন অপকর্ম করতেন বলে এলাকাবাসী জানান।

বিধবা মহিলা খোদেজার মাত্র ৮ শতক জমির উপর একটি থাকার মত ঘর তৈরি করে সেখানে ছাগল একপাশে আর একপাশে তিনি থাকেন।বিধবা মহিলার স্বামী দুলাল সেখ মারা যাবার পর থেকে ৩ টি মেয়ে নিয়ে খুব কষ্টে খেয়ে না খেয়ে তাদেরকে বড় করে এলাকার লোকজনের সহযোগিতায় বিয়ে দেন।এরপর থেকে ঐ বাড়িতে বিধবা মহিলা একাই বসবাস করে আসছে।কিন্তু তার শেষ আশ্রয়স্হলের প্রতি কুদৃষ্টি পড়ে পাশের বাড়ীর আলিম হোসেনের ছেলে মোঃ নেহারুলের।এরপর থেকে দীর্ঘ ৭-৮ বছর ধরে এই জমিটা নিয়ে সব সময় কুপ্রস্তাব সহ বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখায় নেহারুল।

এরপর গত ২১/১০/২০ তাং হঠাৎ নেহারুল পিতা মোঃ আলিম হোসেন,সোহাগ, সেলিম পিতা নেহারুল,মোছাঃ সেলিনা খাতুন স্বামী নেহারুল সহ সবাই তার বাড়িতে অর্তকিতভাবে বাড়িতে ঢুকে বিধবা মহিলা খোদেজা খাতুন ও তার মেয়ে ফরিদাকে মারপিট করে মারাত্বক জখম করে। পরে স্হানীয় লোকজনের সহায়তায় তাদেরকে রক্তাক্ত অবস্হায় উদ্ধার করে দৌলতপুর উপজেলা ৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এরপর দৌলতপুর থানায় বিধবা মহিলা খোদেজা খাতুন অভিযোগ করলে পুলিশ ঘটনাস্হলে এসে কিছুক্ষণ থাকার পর চলে যায়।এরপর নেহারুল আরও ক্ষিপ্ত হয়ে অসহায় বিধবা মহিলা খোদেজা খাতুনের বসতবাড়ী উপর হামলা চালিয়ে ঘর ভেঙে ফেলে এবং ঘরের ইটগুলো নিয়ে পাশের পুকুরে ফেলে দেওয়া হয়।এরপর খোদেজাকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি ও থানায় যেন না যায় এভাবে ভয়ভীতি দেখায়।

অসহায় বিধবা মহিলা এখন বসতবাড়ী হারিয়ে অসহায়ভাবে জীবন-যাপন করছে।গাছেরদিয়া গ্রামের মৃত দুলাল সেখের বিধবা স্ত্রী মোছাঃ খোদেজা খাতুনের ভোগ দখলীয় বসতবাড়ীর চারদিকের ইটের দেয়াল ঘেরাবেঁড়া ভাঙচুর করে ১ লক্ষ টাকার ক্ষতিসাধন করেছে মর্মে অভিযোগ পাওয়া গেছে । বিধবা মহিলা খোদেজা খাতুন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে।

এই বিষয়ে দৌলতপুর থানায় অভিযোগ দাখিল করা হয়েছে । স্থানীয়রা দ্রূত আসামীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবী জানান । অসহায় বিধবা খোদেজা খাতুন এ ব্যাপারে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

আলোচিত খবর

error: কপি করা যাবে না -ধন্যবাদ