দামুড়হুদায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান; ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড

এম.এ.আর.নয়ন-চুয়াডাঙ্গা ।। পুকুর খননের নামে আবাদি জমি থেকে অবৈধভাবে মাটি কেটে বিভিন্ন ইটভাটায় বিক্রি করায় চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালিত হয়েছে। অভিযানে সিদ্দিক মণ্ডল (৫১) নামের এক ব্যক্তিকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তি উপজেলার পুরাতন হাউলী গ্রামের মৃত আবু তালেব মণ্ডলের ছেলে। মঙ্গলবার (১২ই জানুয়ারি) দুপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের এই অভিযান পরিচালনা করেন দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিলারা রহমান।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, আবাদি জমিতে পুকুর খনন করার নামে অবৈধভাবে মাটি কেটে বিক্রি করা হচ্ছে এমন অভিযোগের ভিত্তিতে মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে উপজেলার হাউলী গ্রামের একটি মাঠের মধ্যে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালিত হয়। অভিযানকালে প্রশাসনের কোন রকম অনুমতি ছাড়া পুকুর খননের নামে জমির মাটি কেটে বিভিন্ন ইটভাটায় বিক্রি করার অপরাধে বালু মহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন-২০১০ এর ৪(খ) এবং ১৫(১) ধারায় জমির মালিক সিদ্দিক মণ্ডলকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিলারা রহমান।

এ বিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিলারা রহমান বলেন, হাউলী ইউনিয়নের একটি মাঠে জমির উর্বর মাটি কেটে  বিস্তীর্ণ ফসলি জমির ক্ষতি সাধন করে সেই মাটি ট্রাক্টরে বহন করে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ফলে আশেপাশের জমিও হুমকির সম্মুখীন। এমন অভিযোগে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে এক ব্যক্তিকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়।

পেশকার জিহন আলী এবং দামুড়হুদা মডেল থানা পুলিশের একটি টিম ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিলারা রহমানকে সার্বিক  সহযোগিতা করেন।

আলোচিত খবর

error: কপি করা যাবে না -ধন্যবাদ